সেন্ট পলস ক্যাথিড্রাল কলকাতা

সেন্ট পলস ক্যাথিড্রাল কলকাতার সবচেয়ে বড় ও পুরান চার্চ গুলোর মধ্যে অন্যতম। সুউচ্চ ছাদ, ভেতরের নিরব ও অসাধারণ পরিবেশ কেমন যেন আত্মনিমগ্ন করে তোলে। পরিবেশটাই এমন- চুপচাপ বসে থাকতে ভাল লাগে। এই গির্জার অভ্যন্তরের স্থাপত্য এবং অলঙ্করণ খুবই সুন্দর। ভেতর থেকে রঙীন কাচের জানালা চমৎকার দেখায়। অপরূপ মূর্তি এবং ফ্লোরেন্সীয় রেনেসাঁস মুরাল ও ফ্রেস্কো (দেওয়াল চিত্র) দারুন। চিত্রের মাধ্যমে সেন্ট পলের জীবন ও কর্ম এ গির্জায় বর্ণিত হয়েছে। বিশপ উইলসন এই গির্জার ভূগর্ভস্থ কক্ষে চিরনিদ্রায় শায়িত আছেন (তিনিই এ ক্যাথিড্রালের উদ্বোধক ছিলেন) ।

তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে রানী ভিক্টোরিয়ার প্রেরিত একটি ধাতব মানপত্র এখানে প্রদর্শিত হয়। ভেতরে ছবি তোলা পুরোপুরি নিষেধ। সেন্ট পলস ক্যাথিড্রালের গম্বুজ ও বুরুজসমূহ নরউইচ ক্যাথিড্রালের অনুকরণে নির্মিত। ১৮৯৭-এর ভূমিকম্পে এর গম্বুজ ধ্বংস হয়ে গেলে এগুলি পুনরায় নির্মাণ করা হয়। ক্যাথিড্রালটিতে অনেক দুষ্প্রাপ্য চিত্রকর্ম এবং এর একটি ছোট গ্রন্থাগারে প্রাচীন কিছু গ্রন্থ সংরক্ষিত আছে।



এ ক্যাথিড্রালের সম্প্রদায় চার্চ অফ নর্থ ইন্ডিয়া। এটি প্রাচ্যের প্রথম বিশপসম্বন্ধীয় ক্যাথিড্রাল এবং এ ক্যাথিড্রাল উৎসর্গ করা হয়েছে- ‘সন্ত পল’কে। ভবনটির নকশা করেছিলেন বেঙ্গল ইঞ্জিনিয়ারিংস-এর মেজর উইলিয়াম নেইম ফর্ব্‌স। নির্মাণে গথিক রিভাইভাল নির্মাণ শৈলী অনুসরন করা হয়েছে। নির্মাণে সময় লেগেছিল ৮ বছর (১৮৩৯ সালে শুরু ও শেষ হয়েছে ১৮৪৭ সালে)। ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল, নন্দন-রবীন্দ্র সদন কমপ্লেক্স ও বিরলা প্ল্যানেটারিয়ামের পাশেই অবস্থিত। ঠিকানাঃ ১-এ ক্যাথিড্রাল রোড,কলকাতা-৭০০০৭১৷ উন্মুক্তঃ সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যে ৬টা পর্যন্ত।