পিসি সরকারের ম্যাজিক

পি. সি. সরকার ভারতবর্ষের বিখ্যাত জাদুকর। তার পুরোনাম প্রতুল চন্দ্র সরকার। তিনি অন্যতম একজন আন্তর্জাতিক জাদুকর ছিলেন যিনি ১৯৫০ থেকে ১৯৬০ সাল পর্যন্ত তার জাদু দেখিয়েছেন। তার অন্যতম প্রদর্শনী ছিল ইন্দ্রজাল প্রদর্শনী”। এই প্রদর্শনী তিনি প্রথমে মঞ্চে ও তারপর টেলিভিশনে দেখিয়েছিলেন।

প্রতুলচন্দ্র সরকার ১৯১৩ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশের টাঙ্গাইল জেলার অশোকপুর গ্রামে একটি দরিদ্র হিন্দু পরিবারে জন্মগ্রহন করেন। তিনি শিবনাথ উচ্চ বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করেন। তিনি তার জাদুবিদ্যার প্রাথমিক ধারনা নেন গুনপতি চক্রবর্তীর কাছ থেকে। তার জাদু ১৯৩০ সালের দিকে জনপ্রিয় হওয়া শরু হয়। তিনি কলকাতা, জাপান এবং আরো অনেক দেশেই জাদু দেখিয়েছেন।নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বোসের নির্দেশে তিনি জাপানে যাদু প্রদর্শন করে ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনের জন্য গঠিত আজাদ হিন্দু ফৌজকে অর্থ সাহায্য করেন।

১৯৫৭ সালে যাদুকর পিসি সরকার লন্ডনে বিবিসি টেলিভিশনে বৈদ্যুতিক করাত দিয়ে তরুণী দ্বিখন্ডিত করার খেলাটি প্রদর্শন করেন। খেলাটি টেলিভিশনে দেখেই অনেকে অজ্ঞান হয়ে পড়েন। তাঁর উল্লেখযোগ্য খেলার মধ্যে শূন্যে ঝুলন্ত কঙ্কাল, এক্স-রে চক্ষুর খেলা, জ্যান্ত হাতি অদৃশ্য করা, মোটরগাড়ি অদৃশ্য করা ইত্যাদি উল্ল্যেখযোগ্য।

প্রতুলচন্দ্র সরকার কলকাতার বাসন্তী দেবীকে বিয়ে করেন। তার তিন ছেলে, মানিক সরকার, পি.সি. সরকার জুনিয়র ও পি.সি. সরকার ইয়ং। পি.সি. সরকার জুনিয়র (প্রদীপ চন্দ্র সরকার) ভারতের আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গ থেকে ভারতীয় জনতা পার্টির পক্ষে লড়বেন।



পুরস্কার:

ভারত সরকার “জাদু সম্রাট পি.সি সরকার” নামে কলকাতাতে একটি সড়কের নামকরন করেছে।

১৯৬৪ সালে ভারত সরকার তাকে পদ্মশ্রী সম্মানে ভূষিত করে।

১৯৪৬ ও ১৯৫৪ সালে জাদুর অস্কার নামে পরিচিত দ্য ফিনিক্স (আমেরিকা) পুরস্কার লাভ করেন।

জার্মান মেজিক সার্কেল থেকে “দ্য রয়াল মেডিলিয়ন” পুরস্কার পান।

২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১০ সালে ভারতীয় সরকার তার প্রতি সম্মান জানিয়ে একটি ৫ টাকার স্ট্যাম্প চালু করে।

বিশ্বখ্যাত এই যাদুকর ১৯৭১ খ্রি: ৬ জানুয়ারি জাপানের তাবেৎসু (সাপোরো) শহরে মৃত্যুবরণ করেন।