ধনতেরাস

আর মাত্র কয়েকটি দিন। আলোর উৎসবে মাততে চলেছে চরাচর। দীপাবলির আলোয় ভেসে যাওয়ার প্রতীক্ষায় এ শহরও। চলছে মণ্ডপের কাজ, সাজছে মহানগর, তৈরি হচ্ছে আতসবাজি। তারই মধ্যে ধনতেরাসের প্রস্তুতি। এটি অবাঙ্গালী উৎসব হলেও বর্তমানে বাঙ্গালী সম্প্রদায়ে এর প্রবেশ হয়েছে। সোনাদানা অলঙ্কার কে সৌভাগ্যের প্রতীক ধরা হয় । সোনা অলঙ্কারে ঐশ্বর্যের দেবী মাতা লক্ষ্মী নিবাস করেন । তাই সোনা অলঙ্কারকে অবহেলা করলে দুর্ভাগ্যের আগমন হয়। সেজন্য বলে সোনা অলঙ্কার মাটিতে রাখা নিষেধ । ধনতেরাস উৎসবের নাম ধন্বন্তরি ত্রয়োদশী।

এই তিথিকে ধন্বন্তরি ত্রয়োদশী বলে। দীপাবলি তে মাতা লক্ষ্মীর আরাধনা হয়। এর পূর্বে সোনা অলঙ্কারাদি কেনাকে অত্যন্ত শুভ মানা হয়। তাই এই ধনতেরাস উৎসবে সোনা আদি অলঙ্কার কেনার ধূম দেখা যায় । ধনতেরাস উৎসবের পরদিন থাকে নরক চতুর্দশী বা ভূত চতুর্দশী। এই দিন নরকাসুর বধ হয়েছিলো ।